ফ্রোদো

অন্ধকার ব্যাপারটা এমনিতেই না-পসন্দ, আর আজকে যেন কিরকম বেশি করে চেপে বসেছে, বিস্তর খোঁজাখুঁজি করেও এক ইঞ্চি আলোর দেখা পাওয়া যাচ্ছে না। তার মধ্যে আবার কানটা ভারি ভোঁভোঁ করছে, অনেকক্ষণ ধরে কান ঝাড়া দিয়েও বিশেষ লাভ হয় নি। লোহার ঝুপড়িটার মধ্যে খাবার আর জল দুটোই আছে অবিশ্যি, কিন্তু কোনোটাই খেতে ইচ্ছে করছে না। রাগ আর অভিমান দুটোই একসঙ্গে হলে কারই বা আর খাওয়াদাওয়া করতে ভালো লাগে? দুঃখের চোটে সেই যে গুটিশুটি মেরে শুয়েছে, আর ওঠার নামগন্ধ করেনি। সেটা অবশ্য একদিক থেকে ভালোই, শুরুতে একটু লাফাঝাঁপি করতে গিয়ে মাথায় কয়েকবার ঠোক্কর খেয়েছে। তাতে চিল চিৎকার করেও কোনো লাভ হয়নি, কেউ আসেনি। যেমন নিকষ অন্ধকার ছিল তেমনটিই রয়ে গেছে। মুশকিল হল শুরুর রাগটা চলে গিয়ে এখন একটু একটু ভয় হচ্ছে।  না, একটু একটু না, বড্ড ভয় করছে। অন্যান্য দিন ভয় করলেই প্রাণপণে গন্ধ শুঁকতে আরম্ভ করে, আজকে ছাই কোনো গন্ধও আসছে না নাকে। এরকমটা তো অন্য দিন হয় না। আজকে যে কিচ্ছুটি বুঝতে পারছে না।

ভয়ের চোটেই বোধহয় ঘুমিয়ে পড়েছিল, হঠাৎ কাছ থেকে এমন কুঁইকুঁই আওয়াজ শুরু হল যে কহতব্য নয়। আর এতক্ষণ পর স্পষ্ট একটু আলো দেখা গেল, দুটো ভারি ক্ষুদে ক্ষুদে চোখ কাছেই কোথাও জ্বলজ্বল করতে লাগল। একটু পরেই আওয়াজটা কিরকম কান্নার মতন শোনাতে লাগল, নিশ্চয় বেজায় ভয় পেয়েছে। চোখ দুটো ওর দিকেই ঠায় তাকিয়ে আছে নাকি? তাকিয়ে থেকেই বা লাভ কি, বেরোনোর জো নেই! আরও খানিকক্ষণ চলল আওয়াজটা, তারপর কিরকম ফ্যাঁসফ্যাঁসে হয়ে গিয়ে আস্তে আস্তে থেমে গেল। আওয়াজটা থেমে যেতে খুব রাগ হল, আবার, আবার – খাবার যা ছিল সব উলটে ফেলে দিল। আর তারপরেই ভয়টা এমন জাঁকিয়ে বসল,  বলার নয়। অন্ধকারটা মনে হল খাঁচার ভেতর ঢুকে পড়েছে, দু থাবায় মুখ ঢেকে প্রাণপণে লুকিয়ে পড়তে চেষ্টা করল। আর স্পষ্ট টের পেল ও কাঁদছে, চাইছে না কিন্তু কাঁদছে।

তখনও জানে না আরেক জন্ম পর, দুটো নরম হাত ওকে টেনে বার করবে সেই লোহার খাঁচা থেকে। অনেকটা মমতা, অনেকটা ভালোবাসা নিয়ে সেই জোড়া হাত ওকে নিয়ে আসবে বুকের কাছে। আর নরম নাকটা দিয়ে সেই নরম হাতের মালকিনকে চেনার সময় টের পাবে পাশ থেকে আরেকবার ভেসে আসছে সেই চেনা কুঁইকুঁই আওয়াজ। সেই দুটো ক্ষুদে চোখও যে খুঁজে পেয়েছে আরেক জোড়া মায়াবী হাত।

পুনশ্চ – এগারো সপ্তাহের ছোট্ট ফ্রোদো আজ প্লেনে করে পৌঁছেছে। আপনিও যদি কোনো কালে দু’হাতে ফ্রোদোদের লোহার খাঁচা থেকে বার করে থাকেন,  এ লেখা আপনার।

Advertisements